মীযান হারুন

Author's details

Name: মীযান হারুন
Date registered: April ২৩, ২০১৪

Biography

নাস্তিক্যবাদ পৃথিবীসহ গোটা বাংলাদেশে বাড়ছে জানতাম। কিন্তু আগুন যে এতখানি লেগে গেছে সেটা প্রথম বুঝলাম ‘মুক্তমনা’ দেখে। খুঁজতে লাগলাম নিজের জন্য হলেও দায়িত্বমুক্তির পথ। পেলাম সদালাপকে এপথের বিশ্বস্ত সঙ্গী হিসেবে। জন্মভূমি থেকে সুদূরে মরু-আরবে বসে বিশ্ববিদ্যালয়ের লেখা-পড়ার ব্যস্ততার ফাঁকে নিজের মাটিমাতার সন্তানদের যদি কোনো কাজে আসে- সেই প্রত্যাশায় এই একটু-আধটু কলমের নড়াচড়া।

Latest posts

  1. ‘আল্লাহর কালাম অপরিবর্তনীয়’: একটি প্রতারণার কাহিনী — May ৯, ২০১৪
  2. ‘সালামুন আলাইকুম’ ভাইয়ের চার মাসে হজ্জ করার গল্প — May ৬, ২০১৪
  3. পোপ ও নাস্তিক: বাইবেল কই আর আমরা কই? — May ২, ২০১৪
  4. ছোট্ট শিশু ও বুড়ো নাস্তিক — April ৩০, ২০১৪
  5. সিদ্ধার্থ গৌতমের ‘বৌদ্ধ ধর্ম’: বিবেকের কাছে কয়েকটি প্রশ্ন — April ২৯, ২০১৪

Most commented posts

  1. ডা. জাকির নায়েক ও ভূতে ধরার গল্প — ২২ comments
  2. ঈশ্বর-মুক্ত পৃথিবীর উদ্বোধন এখান থেকে — ২১ comments
  3. ‘সালামুন আলাইকুম’ ভাইয়ের চার মাসে হজ্জ করার গল্প — ২০ comments
  4. ‘আল্লাহর কালাম অপরিবর্তনীয়’: একটি প্রতারণার কাহিনী — ১৯ comments
  5. সিদ্ধার্থ গৌতমের ‘বৌদ্ধ ধর্ম’: বিবেকের কাছে কয়েকটি প্রশ্ন — ৮ comments

Author's posts listings

May ০৯

‘আল্লাহর কালাম অপরিবর্তনীয়’: একটি প্রতারণার কাহিনী

শিরোনামে ‘আল্লাহর কালাম অপরিবর্তনীয়’ বাক্যাংশের সঙ্গে ‘প্রতারণা’ শব্দটি দেখে সম্ভবত আঁতকে উঠেছেন- তাই না? আঁতকে ওঠারই কথা। তাহলে শুরুতেই একটু ঢুঁ মারুন এখানে। কী দেখলেন? উপরে বড় করে ‘কালিমাতুল্লাহ’ আরবি ক্যালিওগ্রাফির নিচে বাংলায় লেখা ‘আল্লাহর কালাম অপরিবর্তনীয়’। পৃষ্ঠার মাঝখানে বড় করে লেখা: পরম করুণাময়, দয়ালু আল্লাহর নামে। হোমপেজের ডানে-বামে ও উপরে-নিচে বিভিন্ন জায়গায় বড় বড় অক্ষরে লেখা ‘কুরআন শরীফের …

Continue reading »

May ০৬

‘সালামুন আলাইকুম’ ভাইয়ের চার মাসে হজ্জ করার গল্প

মহানবী সা. জীবদ্দশায় উম্মতকে সতর্ক করে গিয়েছিলেন (যার মর্মার্থ  হলো), আমার মৃত্যুর পর এক শ্রেণীর লোক বের হবে যারা শুধু বলবে, ‘এটা কোরআনে আছে কি না’? ‘ওটা কোরআনে আছে কি না’? আর তাদের কাছে যখন আমার হাদীস পেশ করা হবে তখন তা থেকে মুখ ফিরিয়ে নেবে। সময়টা বোধহয় চলে এসেছে। আর তাই আজ আমাদের ব্লগের …

Continue reading »

May ০২

পোপ ও নাস্তিক: বাইবেল কই আর আমরা কই?

পোপের আসনটিতে অধিষ্ঠানের পর থেকেই তিনি আলোচনাতে। থাকাটাও স্বাভাবিক। পৃথিবীর ১.২ বিলিয়ন মানুষের আধ্যাত্মিক মানুষের নেতা তিনি। সুতরাং তাঁর সকল কথা-বার্তাই বলা উচিত হিসাব করে। কিন্তু সেখানেই বাঁধে যত গণ্ডগোল। আগে অনেকবারই তিনি বোমা ফাটিয়েছেন। খ্রিস্টান দুনিয়ার সর্বোচ্চ নেতা হয়েও বালিকা চুম্বন করে পুরনো সংকীর্ণতা কাটিয়ে খ্রিস্টান দুনিয়াকে নতুন সবক দিয়েছেন। আর সর্বশেষ কয়েকদিন আগে …

Continue reading »

Apr ৩০

ছোট্ট শিশু ও বুড়ো নাস্তিক

একটি অবুঝ শিশুর প্রতি যদি আপনি আড়াল থেকে একটি ঢিল ছুঁড়েন, কিংবা তাকে লুকিয়ে সামান্য খোঁচা দেন, তবে সে অপ্রস্তুত হয়েই বলে উঠবে, কে রে? কে মারলো রে? তাহলে একটি শিশুও বোঝে যে, কেউ ঢিল না ছুঁড়লে সেটি এমনি এমনি তার গায়ে এসে পড়তো না। কেউ খোঁচা না দিলে তার খোঁচা খাওয়ার কোনো কথা ছিল …

Continue reading »

Apr ২৯

সিদ্ধার্থ গৌতমের ‘বৌদ্ধ ধর্ম’: বিবেকের কাছে কয়েকটি প্রশ্ন

সিদ্ধার্থ গৌতম স্রষ্টা সম্পর্কে কোনো ধারণা দেননি। এসম্পর্কে গোটা ত্রিপিটক খুঁজে একটা বাক্যও পাওয়া যায়নি। স্বয়ং গৌতমের কাছ থেকেও এ বিষয়ে কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি। কিন্তু এর কারণ কী? তবে কি তিনি ঈশ্বরে বিশ্বাস করতেন না? পৃথিবীটা সৃষ্টি করার জন্য; বরং তার জন্মের পেছনেও যে কোনো শক্তি কাছ করছে- তা তিনি মনে করতেন না? হাঁ, …

Continue reading »

Apr ২৭

ঈশ্বর-মুক্ত পৃথিবীর উদ্বোধন এখান থেকে

আগামী পৃথিবী হবে ঈশ্বর-মুক্ত পৃথিবী- এমন ঘোষণা খুব জোরে শোরেই আজকাল বাতাসে ভাসছে। আর সেই ঘোষণার বাস্তব রূপায়ন ইতোমধ্যেই পৃথিবীর দেশে দেশে পুরোদমে শুরু হয়ে গেছে। আজ পৃথিবীর প্রায় ১৬% মানুষ কোনো ধর্মে বিশ্বাস করছে না বা তারা ধর্মহীন। এ ক্ষেত্রে সবার আগে রয়েছে আগামী বিশ্বের রূপকার হিসেবে যাদের নাম তালিকায় সর্বপ্রথম আসে তারা। হাঁ …

Continue reading »

Apr ২৪

ডা. জাকির নায়েক ও ভূতে ধরার গল্প

আগেরদিনে নাকি প্রায় সময়ই মানুষকে জিন-ভূতে পেতো। কখনো কখনো পেত্নীতেও ধরতো। ছোট-বেলা অনেককে শয়তান মিষ্টি খাইয়ে দিয়েছে বলে শুনতাম। কখনও কখনও জিহ্বায় পানি এনে ভাবতাম- হায় ‘মোরেও’ যদি একবার খাওয়াতো! সময়ের বেশ পরিবর্তন হয়েছে। তাই ভূত আর পেত্নীর মাঝেও বুঝি এসেছে পরিবর্তন। এখন ভূত মানুষকে মিষ্টি খাওয়ায় না। দিনে রাতের স্বপ্ন দেখায় আর আলোকে অন্ধকার …

Continue reading »