«

»

Apr ২৬

সন্ন্যাসী বাহিরা : সিরাত হতে সংগৃহীত

[এটি একটি রেফরেন্স পোস্ট]

 

আবু তালিব ব্যবসায়ী হিসেবে কাফেলাসহ সিরিয়া যাচ্ছিলেন। বিদায়ের প্রস্তুতির সময়, রাসূলুল্লাহ(সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) তাঁর চাচার সাথে খুব ঘেঁষে ঘেঁষে রইলেন। ফলে তিনি [আবু তালিব] বাৎসল্যবশত তাঁকে এই বলে সাথে নিতে মনস্থ করেন যে, “আল্লাহর কসম, আমি তাকে আমার সাথে নেব এবং আমরা কখনও পৃথক হবো না।” [তারা] সিরিয়ার বুশরায় পৌঁছলেন। সেখানে বাহিরা নামক আশ্রমে অবস্থানরত একজন সন্ন্যাসী ছিলেন। তিনি খ্রিস্টান ধর্মে সুশিক্ষিত ছিলেন। কথিত আছে, এই সন্ন্যাসী সর্বদা এই আশ্রমেই থাকতেন যেখানে তিনি পুরুষের পর পুরুষ ধরে হস্তান্তরিত একটি বই হতে তাঁর জ্ঞান অর্জন করেছিলেন। সে বছর যখন তারা বাহিরার নিকটে অবস্থান নিলেন, এটা অন্য বছরের থেকে ভিন্ন ছিল; তিনি [বাহিরা] তাদের জন্য বিরাট ভোজনের ব্যবস্থা করলেন যেখানে তিনি তাদের সাথে কখনো কথাও বলতেন না, এমন কি তাদেরকে লক্ষ্যও করতেন না। এর কারণ, কথিত আছে, তিনি তার আশ্রমে অবস্থানকালে কিছু একটা দেখেছিলেন। তারা বলেন যে, তারা যখন নিকটে এলেন, তিনি[বাহিরা] তার আশ্রমে অবস্থানকালে কাফেলার মধ্য থেকে নবী(সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম)কে একটি মেঘ দ্বারা চিনতে পেরেছিলেন যা অন্যান্য লোকদের মাঝে তাঁকে ছায়া দিচ্ছিল। অত:পর তারা আসলেন এবং সন্ন্যাসীর নিকটবর্তী একটি গাছের ছায়ায় বসলেন। তিনি [বাহিরা] দেখলেন মেঘটি গাছটিকে ছায়া দিচ্ছে, এবং এর শাখাপ্রশাখা বেঁকে নবীজি(সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) এঁর ওপর ঝুঁকে রইল যতক্ষণ না তিনি এর ছায়ার নিচে এলেন। বাহিরা যখন এটা দেখলেন, তিনি তাঁর আশ্রম থেকে বের হলেন। তিনি তাদের বললেন, “হে কুরাইশের লোকরা! আমি আপনাদের জন্য খাদ্য প্রস্তুত করেছি। আর আমি চাই যে আপনারা সকলেই আসুন, বৃদ্ধ, যুবক, ক্রীতদাস ও স্বাধীন সবাই।” তাদের একজন বললেন, “আল্লাহর কসম, বাহিরা! আজ আপনার অস্বাভাবিক কিছু একটা ঘটেছে। আমরা প্রায়ই আপনার পাশ দিয়ে যাই, কিন্তু আপনি আমাদের সাথে এমন ব্যবহার আগে কখনোই করেন নাই। আজ আপনার কী হয়েছে?” তিনি বললেন, “আপনি যা বলেছেন সেটা ঠিক। কিন্তু আপনারা আমার মেহমান, আর খাদ্য পেশ করে আমি আপনাদের প্রতি উদার হতে চাচ্ছি যাতে আপনারা সবাই খেতে পারেন।” নবীজি(সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম)কে, যিনি তাদের মধ্য সর্বকনিষ্ঠ, মালপত্রসহ গাছের নিচে রেখে তারা দলবদ্ধ হয়ে তার [বাহিরার] কাছে গেলেন। লোকদের দিকে তাকিয়ে বাহিরা যে লক্ষণ সম্পর্কে জানতেন তা দেখতে পেলেন না। কাজেই তিনি বললেন, “হে কুরাইশগণ! আমার ভোজনে আপনাদের কাউকে অনুপস্থিত রাখবেন না।” তারা তাকে বললেন যে একজন বালক ছাড়া সকলেই এসেছে যে তাদের মধ্যে সর্বকনিষ্ঠ, কাজেই তাকে তাদের মালপত্রের সাথে রেখে এসেছে। তখন তিনি[বাহিরা] বললেন, “তাকে আপনাদের সাথে এই খাবারে শরিক হতে দাওয়াত দিন।” তাদের মধ্যকার একজন কুরাইশী বললেন, “লাত এবং ওজ্জার কসম! আব্দুল্লাহ ইবনে আব্দুল মুত্তালিবের ছেলেকে রেখে আসার জন্য আমাদের তিরস্কৃত হওয়া উচিত।” তখন তিনি তাঁকে নিয়ে এলেন, তাঁকে আলিঙ্গন করলেন এবং তাঁকে লোকদের সাথে বসতে দিলেন। বাহিরা যখন তাঁকে দেখলেন তখন [খ্রিষ্টানদের বইসমূহে বর্ণিত] তাঁর চিহ্নসমূহ খোঁজার জন্য তাঁর শরীরের প্রতি লক্ষ্য করে সতর্কতার সাথে তাঁকে পর্যবেক্ষণ করলেন। খাওয়ার পরে, লোকজন চলে গেলে বাহিরা তাঁর [মুহাম্মাদ(সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম)] কাছে গিয়ে বললেন, “বালক, আমি তোমাকে লাত এবং ওজ্জার কসম দিয়ে বলছি আমি যা জিজ্ঞেস করি তার উত্তর দাও।” বাহিরা এভাবে বললেন কারণ বাহিরা এই বালকের লোকদেরকে এই মূর্তিগুলোর নামে কসম করতে শুনেছিলেন। বলা হয় নবী(সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) তখন তাকে বলেছিলেন, “লাত এবং ওজ্জার নামে আমাকে কিছু জিজ্ঞেস করবেন না, কেননা আল্লাহর কসম, এই দু্‌ইটি অপেক্ষা অন্য কিছুকে আমি বেশি অপছন্দ করি না।” বাহিরা উত্তরে বললেন, “তবে আল্লাহর কসম, আমি যা জিজ্ঞেস করি তা আমাকে বলো।” তিনি বললেন, “আমাকে যা ইচ্ছা জিজ্ঞেস করুন।” কাজেই তিনি তাঁকে তাঁর ঘুম, অবয়ব, এবং সাধারণ বিষয়াদি সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করলেন। নবী(সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম)এঁর উত্তরগুলো, বাহিরা তাঁর সম্পর্কে যে বিবরণ জানতেন সেটার সাথে মিলে গেল। অত:পর তিনি তাঁর পিঠের দিকে তাকালেন এবং তাঁর দুই স্কন্ধের মাঝে নবুয়্যতের সীলমোহর দেখতে পেলেন, ঠিক যে জায়গায় তার বইতে বর্ণিত আছে। পরে তিনি তাঁর চাচা আবু তালিবের কাছে গিয়ে বললেন, “এই বালকের সাথে আপনার কী সম্পর্ক?” তিনি [আবু তালিব] বললেন, “সে আমার ছেলে।” বাহিরা বললেন, “না, সে আপনার ছেলে নয়। তাঁর পিতার জীবিত থাকার কথা নয়।” তিনি [আবু তালিব] বললেন, “সে আমার ভাইয়ের ছেলে।” যখন তাকে জিজ্ঞাসা করলেন তাঁর পিতা কোথায় তিনি [আবু তালিব] বললেন, “সে তাঁর মায়ের গর্ভে থাকা অবস্থায় তাঁর পিতা মারা গেছে।” বাহিরা বললেন, “সেটা সত্য। আপনার ভাইয়ের ছেলেকে নিয়ে ফিরে যান এবং তাঁক ইহুদিদের থেকে সতর্কতার সাথে হেফাযত করুন, কারণ, আল্লাহর কসম, তারা যদি তাঁর সম্পর্কে তা জানে যা আমি জানি, তবে তারা তাঁর বিরূদ্ধে কুচক্রান্ত করবে। আপনার ভাতিজার জন্য অনেক বড় বিষয় রক্ষিত আছে। কাজেই, তাকে দ্রুত বাড়ি নিয়ে যান।” [সূত্র: Sirat Ibn Hisham (Biography of the Prophet), Abridged by Abdus Salam M. Harun, Al-Falah Foundation, 2000, p.25-26]

১ comment

  1. 1
    jahir

    bahira padri, al wakedi ei christran monks guli kon hadis e pawa jay na. ar eder niye kom kom information ase. hote pare ei character guli banano hoyese.

Leave a Reply

Your email address will not be published.