Category Archive: স্মৃতিকথা

Oct ০১

রোহিঙ্গা ইস্যু, তাবলিগী দাওয়াত ও তার মীম ভাইরাস

উখিয়া থেকে টেকনাফ; রোহিঙ্গাদের দুঃখ, দুর্দশা, অমানবিকতার চিত্র। রোদ, বৃষ্টি, জ্বরসহ সকল প্রকার অসুস্থতা, অন্তরের সকল প্রবৃত্তি- “ক্ষুধা” নামক এক মহাদানবের কাছে সবকিছু বিলীন হয়ে যাচ্ছে। এই অন্তর নিংড়ানো কষ্টের উপর যে কারো পক্ষে ধৈর্য ধারন সহজ ব্যপার নয়। ক্ষুধার তাড়নায় এক অদৃশ্য গগন বিদারী নীরব চিৎকার। অতি বৃষ্টির দরুন রাস্তার দুই পাশে পায়ের গোড়ালী কাদায় …

Continue reading »

Aug ০১

গল্প শুনুন, আয়োডিনযুক্ত বাংলা গল্প-২ (রম্য+বাস্তবতা)

হাড়িভাঙ্গা; বাংলাদেশের আমের জগতে একটি সুস্বাদু ফল। অনেকেই সারা বছর মুখিয়ে থাকেন এই ফলটির জন্য। রুপালী, ল্যাংরা, চুষা… রকমারি মজাদার আমের ভুবনে হাড়িভাঙ্গা এখন সবার উপরে জায়গা করে নিয়েছে। এই আমের কদর এখন বেশি। যখনই এই আম কিনতে যাওয়া হয়, কিছুটা সন্দেহ থাকে কারন এই জাতের আম অনেকটা হিমসাগর আমের মত দেখতে। তবে সাইজে হিমসাগরের …

Continue reading »

Feb ১৫

মরক্কোর রোজনামচা ৯

মরক্কোর রোজনামচা পর্ব ৯ যে সকল শ্রীলঙ্কান মেয়েরা ফ্যাক্টরি আয়োজিত পিকনিকের যায়নি, সিদ্ধান্ত নিলো আগামীতে যে শুক্রবারে ফ্যাক্টরি বন্ধ থাকবে, সে বন্ধের দিন আমাকে নিয়ে দুবাই জুমেরিয়্যা বীচে বেড়াতে যাবে। খুব গোপনীয়তা রক্ষা করে মাসুদ আমাকে জানিয়ে সম্মতি নিতে আসে। বীচে যাবার পর,উপস্থিত মেয়েদেরকে বললাম,সেদিন তোমরা ফ্যাক্টরির পিকনিকে যে যাবেনা সে বিষয়ে ঘুণাক্ষরে তোমরা আমাকে …

Continue reading »

Jan ০৭

মরক্কোর রোজনামচা ৮

মরক্কোর রোজনামচা পর্ব ৮ বিকাল তিনটা থেকে রাত বারোটা পর্যন্ত নাচ, গান, মস্তি, মৌজে চলে গেল। আগামীকাল সকাল থেকে আবার শুরু হবে গতানুগতিক কাজ! ছেলেরা নেশায় আচ্ছন্ন বিধায় কেউ ঘরে যেতে রাজী ছিলোনা। বহু কষ্টে ছেলেদেরকে বুঝিয়ে  সমঝিয়ে শান্ত করে তাদের রুমে পাঠিয়ে দেয়া হলো।  পরিশ্রান্ত খুব সহজে সকলে ঘুমের দেশে চলে গেল। ভোরে যথা …

Continue reading »

Dec ৩১

মরক্কোর রোজনামচা ৭

মরক্কোর রোজনামচা পর্ব-৭ নতুন ফ্যাক্টরি চালু হলে অনেক দিকেই অসম্পূর্ণতা নিয়েই চলতে হয়। ফ্যাক্টরির প্রোডাকশন ম্যানেজারের দায়িত্ব লাভ করার সাথে সাথে, আমার উপর এক সাথে অনেক গুলো দায় দায়িত্ব বর্তায়। সব সময় প্রচণ্ড চাপের মধ্যে পড়ে যাই। কেমন করে দিন আসে, দিন যায়, রাত আসে রাত যায়, তা অনুভবে আসেনা। আমরা চার দেয়ালের মধ্যে স্বেচ্ছাবন্দী …

Continue reading »

Dec ২১

মরক্কোর রোজনামচা ৬

মরক্কোর রোজনামচা পর্ব-৫ পৃথিবীতে এমন কিছু হতভাগ্য মানুষ আছে ; তারা যদি ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা করে  কোন কিছু  করার চেষ্টা করে। তাদের সেই প্রচেষ্টা কখনো সফল হয়না। আমিও এই দল ভুক্ত মানুষ। আমার জীবনের কোন পরিকল্পনা সফল হয়নি। আমার ভাগ্যে অনেককে বন্ধু হিসাবে পেলেও আমার ঘনিষ্ঠ বন্ধুদের থেকে সব সময় নাই নাই নেতিবাচক বাক্যটি অহরহ শুনে …

Continue reading »

Dec ১৪

মরক্কোর রোজনামচা- ৫

পর্ব- ৪ আগে গোসলের সময় সাবান শ্যাম্পু অবশ্য ব্যবহার করতাম কিন্তু মরক্কো আসার পর, যেদিন প্রথম মরক্কোর হাম্মামে  গোসল করতে আসি।  আমার শরীর থেকে  রুটি খামিরের মত দলা দলা করে, সেদিন যখন  ময়লা বের হয়ে আসতে থাকে,  তখন বুঝতে পারি আসলে এতদিন আমি গোসল করতে জানতাম না। ভাল করে গোসল করতে জানতামনা বলেই ছোটবেলা  আম্মা …

Continue reading »

Dec ১১

মরক্কোর রোজনামচা -৪

পর্ব ৩ মরক্কোর রোজনামচা-পর্ব ৪ শারজাহতে থাকা, খাওয়া. গোসল, চিকিৎসা ইত্যাদি কোম্পানির তরফ থেকে প্রদত্ত হলেও তা পর্যাপ্ত সুখকর নয়। অফিসারদের জন্য তিনটি আলাদা পিস সেন্টার থাকলেও যখন তিনের অধিক ব্যক্তির একসাথে প্রয়োজন হয়ে পড়ে তখন বিরাট সমস্যা মোকাবেলা করতে হয়। খাবার জন্য ক্যান্টিনে আম! ক্যান্টিনের কিচেনে রন্ধন কার্য সমাধানের জন্য মাত্র দুইজন লোক। একজন …

Continue reading »

Dec ১০

মরক্কোর রোজনামচা- ৩

পর্ব ২ বৃহস্পতিবার দুপুরে রমেশ চোপড়া আমার হাতে দুবাই ফিরে যাবার রিটার্ন টিকেট দিয়ে জানায়; আজ সন্ধ্যায় আমি দুবাই ফিরে যাচ্ছি!  যাক এবার বস তার কথা রেখেছেন। সন্ধ্যায় কুয়েত এয়ার লায়ন্সের এ-৩২০এয়ার বাসে করে, কুয়েত ইন্টারন্যাশনাল এয়ার পোর্ট থেকে মাত্র এক ঘণ্টা পঁয়তাল্লিশ মিনিটের মাথায় দুবাই আল মাখতুম ইন্টারন্যাশনাল এয়ার পোর্টে পৌঁছে যাই।  যখন এয়ারপোর্ট …

Continue reading »

Dec ০৯

মরক্কোর রোজনামচা -২

 পর্ব- ১ দালাল ভাইয়ের সাথে এয়ারপোর্ট টার্মিনাল বিল্ডিং থেকে যেই মাত্র বের হয়েছি, ওরে বাপ রে বাপ! কি গরম! যেন গায়ে আগুনের ছ্যাঁক লাগছে। সামান্য কিছু হাঁটার পর দেখি হালকা নীল রঙ এর একটি মার্সিডিজ বেঞ্চের বাস টার্মিনাল ছাড়তে শুরু করেছে, দালাল ভাই বললেন- জলদি করুখা বাস তো ছাড়ি দিছে! দৌড়তে দৌড়তে গিয়ে গাড়িতে উঠে …

Continue reading »

Dec ০৮

মরক্কোর রোজনামচা -১

প্রিয় পাঠক/পাঠিকা, মরক্কোতে আমি পর্যটক হিসাবে বেড়াতে আসিনি। গার্মেন্টস ফ্যাক্টরির নগণ্য কর্মী হিসাবে আমার কোম্পানি আমার ইচ্ছার বিরুদ্ধে চাপে ফেলে আমাকে আসতে বাধ্য করেছে । সঙ্গত কারণে-মরক্কোর হাল-চিত্র পর্যটকের দৃষ্টিতে দেখিনি বা দেখতে পাইনি । তাছাড়া রাত দিন যেভাবে চাপের মধ্যে থেকে কাজ করে যেতে হয় তার জন্য সে ভাবে দেখার সময়ও নেই। এখানে আমাদের …

Continue reading »