«

»

Sep ১৯

স্কটল্যান্ড কি স্বাধীন হবে?

আজ ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৪। স্কটল্যান্ড ব্রিটেন থেকে আলাদা হবার প্রশ্নে রেফারেণ্ডামে গিয়েছিল। এই ঘন্টা খানেক আগে, নির্বাচন কেন্দ্রগুলো বন্ধ হল (এখন ১১:০০টা)। আমি টিভি দেখছি। হঠাৎ মনে হল কয়েকটি লাইন দিয়ে যদি একটি ব্লগ দিতাম। তাই দিচ্ছি। বিষয়টি খুবই জরুরি। হয়ত সময় নিয়ে লিখলে ভাল হত কিন্তু এখন তা সম্ভব নয়। একটু পরেই বেডে যেতে হবে।

স্কটল্যান্ডের লোক স্বাধীনতা প্রশ্নে ঘরে ঘরে বিভক্ত ছিল। এলাকায় এলাকায় বিভক্তি ছিল। কেউ স্বাধীনতা চায়, কেউ চায় না –তারা অখণ্ড-ভূখণ্ড চায়। কেন? এই প্রশ্নে উভয় পক্ষেই যুক্তি রয়েছে। এখানে ইতিহাসের বিষয় রয়েছে; ভৌগলিক জাতীয়তাবাদের ধারণা রয়েছে; আগামী দিনের (ভবিষ্যতের) বিষয় রয়েছে। এখানেও অধীনতা ও শোষণের ধারণা রয়েছে। দ্রষ্টার দৃষ্টিগত relativity রয়েছে। এখানেও employment বিষয়ক কথা আছে; এখানে স্কটিশ নর্থ-সী তেল ও গ্যাসের বিষয় রয়েছে; অন্যান্য রিসোর্সের বিষয় রয়েছে। এসব রিসোর্স গোটা ব্রিটেনে ব্যবহৃত হওয়ার বিষয় রয়েছে। আবার সেন্ট্রাল সরকার থেকে পরিচালিত হওয়া ও গঠন-উন্নয়নে দেশ সমৃদ্ধশালী হওয়ার কথাও রয়েছে –যা অস্বীকার করার উপায় নেই।

আলাদা হয়ে কী লাভ হবে? একত্রে থাকাতে ক্ষতিই কী? এমন ধরণের আলোচনা-ধারা এভাবে আসছে: আমরা স্কটিশ ছিলাম, এখনো আছি, আগামীতে থাকব। বিভক্ত হলেও স্কটিশ থাকব। তবে আমাদের বিভক্তি বা স্বাধীনতার অর্থ কী হবে? এই অর্থ খোঁজতে হবে নিজ ভূখণ্ডে, আন্তর্জাতিক ময়দানে, শক্তিতে, সামর্থ্যে। তারপর দেখতে হবে দ্বিতীয় মহাযুদ্ধ পর্যন্ত ইউরোপের গোটা ইতিহাস ছিল পারস্পারিক যুদ্ধের ইতিহাস। আগামীতে ইউরোপের ঐতিহাসিক যাত্রা কীরূপ হবে এবং সেখানে এই ক্ষুদ্র ভূখণ্ড, স্কটল্যান্ডের, কী হবে? অতি সংকোচিত ব্রিটেনের কী অবস্থা হবে? স্বাধীনতা তো কোনো rhetoric নয়। এটা অর্থবহ হতে হবে।

স্কটল্যাণ্ডবাসী নানান প্রশ্নের মাধ্যমে তাদের সেই সকল অর্থ খোঁজে এসেছেন। অনেক আলোচনা তারা বিগত কয়েক বছর ধরে করে আসছেন এবং, বিশেষ করে, গত ছয় মাস ধরে রেডিও, টিভি, আলোচনা চক্র, সেমিনার ইত্যাদির মাধ্যমে, intensively। এই দীর্ঘ আলোচনা এজন্য জরুরি হয়েছিল যে স্কটল্যান্ড সকলের দেশ। এখানে কোনো এক পক্ষের পীড়াপীড়ি বা তির্যক কথাবার্তায় কাজ হবে না। দেশ সকলের।

আমি তাদের এই ‘হ্যাঁ’ ‘না’ অভিযানে নীরবে সভ্যতার একটা মাত্রাও লক্ষ্য করেছি। তারা এই অখণ্ড এবং বিভক্তি ঘিরে সম্যক, বিস্তর, আলোচনা করেছেন। একে অন্যের অবস্থান বোঝাবার চেষ্টা করেছেন এবং নিজেরাও বোঝতে সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চালিয়েছেন। এখানে অর্থনীতি, রাজনীতি, আন্তর্জাতিক অবস্থান, মিলিটারি ও স্ট্রাটেজিক অবস্থান –সবকিছুই আলোচিত হয়েছে। এতকিছুর পর এইমাত্র ভোটাভুটি শেষ হল।

আমরা এখনো জানি না কী হবে। আমি একদিকে টিভির দিকে তাকাচ্ছি এবং অন্যদিকে এই ব্লগটি লিখছি। এখন সময় রাত ১১-২৫ মিনিট। আমি বিবিসি-২ দেখছি। প্রিডিকশন দেখছি এভাবে: ‘না-পক্ষ’ ২% বেশি ভোটে এগিয়ে। কিন্তু মনে রাখতে হবে এই অভিযানে বিবিসি নিরপেক্ষতা দেখাতে পারেনি! মিডিয়া সর্বতভাবে ‘না’ পক্ষ দেখিয়েছে। তবুও কে জানে, কাল সকালে কী শুনতে পাব।

৩ comments

  1. 2
    শামস

    That means the 800,000 Scots who live in other parts of the UK don't get a vote, while the 400,000 people from elsewhere in Britain who live in Scotland do.

     

    স্কটল্যান্ডের মোট জনসংখ্যা জুন ২০১৩ এর হিসেব অনুযায়ী ৫৩ লাখ+, এর মধ্যে ৮ লাখকে বিরত রাখা হয়েছিল, যা মোট জনসংখ্যার আনুমানিক ১৫%!!!!!

     

    https://imageshack.com/i/pbSi8diBg

     

    1. 2.1
      এম_আহমদ

      ধন্যবাদ। তবে এই স্থানটিও ভাল করে দেখতে হবে। উল্লেখিত সংখ্যাকে রেফারেন্ডামে সংযুক্ত না করাতে আমার বিবেচনায় হ্যাঁ-পক্ষের লাভ হয়েছে। না হলে, ‘না-পক্ষে’ আরও ভোট পড়ত। এই যে ৭/৮শো হাজার লোক, যাদের জন্ম স্কটল্যান্ডে, কিন্তু বসবাস করছে ইংল্যান্ডে –এখানে তাদের বাসা-বাড়ী আছে, বাচ্চা-কাচ্চা আছে, ব্যবসা-বাণিজ্য আছে। স্কটল্যান্ড স্বাধীন হলে তাদের লাভ না ক্ষতি? প্রথমত তারা এখানে রাতারাতি 'বিদেশি' হয়ে পড়ার সম্ভাবনা। তারপর  যাতায়াতসহ অনেককিছুতে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা। তুলনায় সেদিনের পূর্ব পাকিস্তানের কথা স্মরণ করা যেতে পারে। অসংখ্য বাঙ্গালী পশ্চিম পাকিস্তানে ছিল। সেদিন যদি স্বাধীনতার পক্ষে/বিপক্ষে ভোট হত তবে ওরা কোন দিকে ভোট দিত? আমার ধারণা অখণ্ড পাকিস্তানের পক্ষে। তবে কিছু ব্যতিক্রম যে হত না তা অস্বীকার করা যাবে না।

      মূল কথা, মানুষ যখন কোনো কাজ সঠিক বিবেচনার সাথে করে তখন তাতে ভুল থাকলেও তেমন যায় আসে না। এখানে স্কটল্যান্ডবাসী অনেক বিবেচনা করেছেন। Maturity দেখিয়েছেন। এখন হ্যাঁ-পক্ষের লোকজন গণ-রায় মেনে নিয়েছেন। ইংল্যান্ডের প্রধান ৩ দল: লেবার, কন্সারভেটিভ ও লিব-ডেম, না-পক্ষের অভিযানে গিয়ে একজোটে আরও অধিক ক্ষমতা স্কটল্যান্ডে বিকেন্দ্রীকরণের আশ্বাস দিয়ে এসেছেন যা আগামী বৎসরের জাতীয় নির্বাচনের পর আইনি রূপ লাভ করবে। এটা স্কটগণের জন্য ভাল হয়েছে। স্কটল্যান্ড স্বাধীন হয়ে গেলে ব্রিটেন একান্ত দুর্বল হয়ে পড়ত। ইউরোপে, এবং সারা বিশ্বে, তারা অনেকটা নগণ্য হয়ে পড়ত। আর একটি ছোট্ট দেশ হিসেবে স্কটদেরই বা কী হত।

  2. 1
    এম_আহমদ

    স্কটল্যান্ড অখন্ড ব্রিটেনে থাকল। হ্যাঁ’ ৪৫%, ‘না’ ৫৫%। এটা শেখ মুজিবের শ্লগানে এভাবে আসতে পারে "জয় স্কটল্যান্ড, জয় ব্রিটেন"।

    এই অভিযানে আমাকে যা বিস্মিত করেছিল তা হল এই যে দেশের যুবক-যুবতিগণ যৌক্তিক ভাষায় নিজেদের অবস্থান আলোচনা করতে পেরেছিল। এটা এজন্য যে তারা উভয় পক্ষ থেকে যৌক্তিক এবং নির্মোহ আলোচনার স্থান দেখতে পেয়েছিল এবং সেই স্থানগুলো নিজেদের আলোচনায় নিজেদের করে ব্যক্ত করতে পেরেছিল।

Leave a Reply

Your email address will not be published.