Tag Archive: কবিতা

Nov ০৯

নির্বাসনে যাবো আমি

নির্বাসনে যাবো আমি নির্বাসন দাও যদি জনারণ্যে । কোলাহল আমার পছন্দ নয় তবু মাথা পেতে নেবো এই অগ্নিশিখা জ্বলে জ্বলে হবো ছাই বিধাতার সুনিপুন বলি আমি এক জিন্দালাশ । বাজাবো মোহন সুর নির্বাসনে মাথায় বাঁধবো রুমাল রক্ত লাল হাতে তুলে দাও যদি রঙ্গিলা বাঁশি । মনে বড় সাধ ছিলো এই কৃষ্ণকলি কৃষ্ণ প্রেমের জোয়ারে ভেসে …

Continue reading »

Aug ২৯

রাত এগিয়ে গভীর হলে

রাত এগিয়ে গভীর হলে হাওয়া বেতাল হয় কল্কির গন্ধে দিশেহারা বাউল দোতারায় এঁকে যায় জীবনের ছবি । তার নিজস্ব রমণী প্রেম কামনার বহিৃশিখা একা বিছানায় পুড়ে পুড়ে ছাই হয় বিচ্ছেদ দহনে । রাত এগিয়ে গভীর হলে একদল নেশাখোর যুবক তড়িঘড়ি ঢুকে পড়ে বাউলের ঘরে তালে তালে তুলে নেয় একতারা দোতারা বাউলের জীবন নিজস্ব রমণী । …

Continue reading »

Aug ২১

ঝলসানো মানবতা

ভোরের আবছা আলোয় বৃষ্টি ভোজা এক দল উপবাসী কাক গুলশানের এঁটো স্তুপে জ্বলে ওঠে হিংসায় কা কা রবে গগণ বিদারী প্রতিবাদ জানায় লাফিয়ে লাফিয়ে টোকা মারে বিধ্বস্ত কুমারী সখিনা বানুর মুন্ডিত মুন্ডে । আমল দেয় না কুমারী প্রতিবাদের ঝড় শুন্যে উড়িয়ে বেছে বেছে তুলে নেয় খাদ্য নামক দ্রব্যাদি কুতকুত ঘোলা চোখে আনন্দ অশ্রু । ভোরের …

Continue reading »

Aug ০৪

জলে ভেজা যৌবন

অবিরাম জলধারা শ্রাবণ দুপুর পাতায় পাতায় সুর ছন্দে ছন্দে খেলায় বিভোর সব গাছ গাছালি উতাল মাতাল মন ছলাৎ ছলাৎ নিঠুর বন্ধু তুই লুকালি কোথায়? ঠাঁটে ঠোঁটে চোখে চোখে চাতক চাতকী জলজ ভালোবাসায় একাকার সোনা বন্ধু আমার অভাগীরে একা ফেলে পরবাসে তুই কোন্ রূপসীর প্রেমে আকুল ব্যাকুল? শনশন্ বায়ু বয় ঘুম নেই চোখে নিকষ কৃষ্ণ রাত …

Continue reading »

Jul ২৪

সেই মেয়েটি

প্রতিদিন তড়িঘড়ি পড়ন্ত বেলা গলির বুক মাড়িয়ে চুপচাপ হেঁটে যায় যে মেয়েটি কাঁধে তার রংচটা লাল ব্যাগ ডান হাতে ঘড়ি বাম হাতে সুর তোলা কাঁচের চুড়ি খাড়া নাকে নাকফুল ঝিলিক মারা । মেঘ কালো চুলে তার রূপালী কিলিপ থেকে থেকে খেলা করে বাতাসের সাথে সুতনুর ভাঁজে ভাঁজে বিজলী চমক টলোমলো যৌবন হৃদয় কাড়া । গলির …

Continue reading »

Jan ২৯

একুশে বইমেলায় ‘কবি শফিকুল ইসলামের শ্রেষ্ঠ প্রতিবাদী কবিতা’ (ডাউনলোড, ডানে লিঙ্কে ক্লিক করুন)

Download Book কবি শফিকুল ইসলাম বিপ্লবী কবি। তার কাব্যের বিষয়বস্তু’ হচ্ছে সাম্যবাদী চেতনা। তার লক্ষ্য শোষণ বঞ্চনা নিপীড়ন নির্যাতনে নিষ্পেষিত মানুষের মুক্তি অণ্বেষা। তার দুটি প্রতিবাদী কাব্যগ্রন্থ ‘দহন কালের কাব্য’ ও ‘প্রত্যয়ী যাত্রা’ কাব্যগ্রন্থসহ বিভিন্ন পত্রপত্রিকা ও সংকলনে প্রকাশিত কবিতা নিয়ে ‘কবি শফিকুল ইসলামের শ্রেষ্ঠ প্রতিবাদী কবিতা’ নামে কাব্যগ্রন্থটি প্রকাশিত হল। আজকে সীমাহীন শোষণ নির্যাতন …

Continue reading »

Dec ৩০

আমার কি আছে?

সকালে উঠিয়া ভালভাবে চলা, গুরুজনের আদেশ উপদেশ মানিয়া, আমার কোন লাভ নেই, কারণ ক্লাসভর্তি উজ্জ্বল সন্তানরা, লিখবে মহান কবিতা, আমি ফেল্টুস, বানান ভুলে ভর্তি, আমার পক্ষে সম্ভব নয়, ঠাকুর কিংবা নজরুল হওয়া।   ব্যাবসাও আমি চিনা না, লাভ ক্ষতির হিসাব মাথায় আসে না, জীবনে নিজের কিছু বিক্রি করি নাই, আমি কি করে বুঝবো মার্কেটিংয়ের মর্মার্থ? …

Continue reading »

Aug ০৭

০৩টি কবিতা

০১। জন্ম সনদই মৃত্যুর ছাড়পত্র বুলেটের খেলা হবে শোনলে সরে পড়ো সংগোপনে আজরাইলের নোটিশকেও দিতে চাও ফাঁকি বিপ্লবের বর পুত্র মৃত্যুকে এতো ভয় কেনো বলো শোননি জন্ম সনদই তোমার মৃত্যুর ছাড়পত্র?  ০২। তোমার তরে                 তোমার তরেই ছিলেম বন্ধু                 তোমার তরেই আছি                 জীবন মরণ তোমারই দান                 তোমার তরেই নাচি ।                ০৩। …

Continue reading »

Aug ০১

বধু

শিশির কণার মতো বিন্দু বিন্দু ঘাম খেলা করে অহরহ তোমার বদনে আমার কিশোরী বধু একটু দাঁড়াও পূবের জানালা পথে ধানী রং শাড়ি পরে খোলা চলে এলোমেলো দূর থেকে আমি বাউল নয়নে দেখি তোমার সুরত। সকালের সোনা রোদে কাজলা দিঘীর ঘাটে এলোচুলে এসো সখি মাটির কলসী কাঁখে হৃদয় উজাড় করে দেখবো তোমার তালে তালে পথ চলা …

Continue reading »

Jul ১৭

দিওয়ানা

তুমি যদি পাখি হও আমি হবো নীলাকাশ সীমাহীন নীল থাকবে না বাধা আমার উঠোনে উড়বে স্বাধীন আমি তখোন কৃষ্ণ তুমি সখী রাধা । তুমি যদি পাখি হও আমি হবো নীলাকাশ বিশাল ছাতা সীমাহীন ছায়া আমার বুকে গড়বে বসত আমি তখোন মজনু তুমি সখি মায়া । তুমি যদি বোট হও আমি হবো নদী তরতর বেগবান ঢেউয়ের …

Continue reading »

Jul ১০

নদীর ভূবনে আমার হলো না যাওয়া

অনেক দূর হেঁটেছি কাক ডাকা ভোর থেকে তবু যাওয়া হলো না নদীর ভূবনে । আঙিনা পেরিয়ে কুয়া তেজী পুরুষের কল্যাণে ক্ষয়ে যাওয়া এবড়ো থেবড়ো পাড় লতা পাতায় ঢাকা ঝোপ জঙ্গল দাদা দাদীর কবর আঁধার জলাশয় বিবর্ণ মাট মাঠের হৃদয় ফুঁড়ে কালি মন্দির এক পায়ে দাঁড়িয়ে প্রহর কাটায় । মন্দিরের গা ঘেঁষে সতিনের পুকুর আউলা বাতাসে …

Continue reading »

Jun ৩০

এতো জল আমি রাখবো কোথায়

আমার বসত জল থইথই এতো জল আমি রাখবো কোথায়? দুপুর রজনী জলের বাসরে একাকার হয়ে হাবুডুবু খায় সখের বিছানা কাপড় চোপড় বিষে ভরা দেহ আশ্রয় চায়। এতো জল আমি রাখবো কোথায়? বিধির খেয়াল  বৃষ্টি কান্না অবিরাম গায় রণসংগীত সুরের মাতম ঝড় হয়ে ঝরে। এতো জল আমি রাখবো কোথায়? আমার হৃদয় ফেটে চৌচির মনোবাতায়ন পুড়ে পুড়ে …

Continue reading »

Jun ২৬

শাদা বক / মফিজুল ইসলাম খান

হতাম যদি শাদা বক বিলে ঝিলে লাফিয়ে লাফিয়ে খেতাম পুটি মাছ মনের সুখে পাখার আড়ালে এক পা লুকিয়ে চুপচাপ দাঁড়াতাম ঘুম ঘুম চোখে খুলে যেতো স্বপ্ন ভূবন। স্বপ্নঘোরে নিঠুর শিকারীর বিষের তীর ছুঁয়ে যেতো বাদামী খুঁটির হৃদয় দেখতাম নেতিয়ে পড়েছে ঘাস ফুল কচি কচি ধানের বাচ্চা অসহায় প্রাণীকূল খেয়ালি বিধির নিদারুণ তামাশা তার গুন্ডামীর বলি …

Continue reading »

Jun ১০

নির্বাসনে যাবো আমি / মফিজুল ইসলাম খান

নির্বাসনে যাবো আমি নির্বাসন দাও যদি জনারণ্যে কোলাহল আমার পছন্দ নয় তবু আমি মাথা পেতে নেবো সখি অগ্নিশিখা   জ্বলে জ্বলে হবো ছাই বিধাতার সুনিপুন বলি আমি এক জিন্দালাশ । বাজাবো বাঁশের বাঁশি নির্বাসনে মাথায় বাঁধবো ফিতা রক্ত লাল হাতে তুলে দাও যদি ষোল তাল বাঁশের বাঁশরি বধু তালে তালে নাচবো কোমর দুলিয়ে আমি কৃষ্ণকলি …

Continue reading »

May ২৭

তৃষিত চাতক / মফিজুল ইসলাম খান

ধূলাক্ত বসন এলোমেলো চুল চোখের কার্ণিশে জলবিন্দু পঁচিশে বেড়ে ওঠা এক তৃষিত চাতক আদিবৃত্তে খোঁজে সুপেয় জল ।   পায় না জলাধার সবুজে ঘেরা নিরিবিলি চাতাল কাঁকনের সুরে কুসুমিত প্রহর হৃদয় ছোঁয়া ।   খুঁজে খুঁজে ক্লান্ত তৃষিত চাতক খুলে রেখেছে মুখ দুহাত বাড়িয়ে জল কন্যাগণ খুলে দাও জলাধারের নল সোনালী আভায় ধীরে ধীরে গলুক …

Continue reading »

Older posts «